বিশ্বজুড়ে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ২ লাখ ৭৫ হাজার


আগের দিনের ন্যায় পৃথিবীব্যাপী করোনার তাণ্ডব আরও কমেছে। ভাইরাসটিতে প্রাণহানি দীর্ঘ হলেও স্বস্তি মিলছে সুস্থতার হারে। বিশ্বজুড়ে এখন পর্যন্ত করোনায় ১০ লাখ ৮৫ হাজারের বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটলেও সুস্থতা লাভ করেছেন আরও আড়াই লাখ রোগী। ভাইরাসটির সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত তিন দেশ হলো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ভারত ও ব্রাজিল।  

বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের নিয়মিত পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ২ লাখ ৭৫ হাজার ২৩২ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ কোটি ৮০ লাখ ৩১ হাজার ৬৬৭ জনে দাঁড়িয়েছে। নতুন করে প্রাণ ঝরেছে ৩ হাজার ৭৫৬ জনের। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ১০ লাখ ৮৫ হাজার ১৫১ জনে ঠেকেছে।

অন্যদিকে গত একদিনে সুস্থতা লাভ করেছেন ২ লাখ ৪৯ হাজার  ৭৮৯ জন রোগী। এতে করে করোনামুক্ত হওয়ার সংখ্যা বেড়ে ২ কোটি ৮৫ লাখ ৯২ হাজার ৮১৩ জনে পৌঁছেছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম মানবদেহে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপর দেশটিতে এ ভাইরাসে অস্বাভাবিকভাবে প্রাণহানি ঘটে। এর পরপরই চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইউরোপের দেশগুলোতে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণ মাত্রা ছাড়ায়। সে সব দেশে করোনা ভাইরাস কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসলেও উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোতে এখনও ক্রমশ বেড়েই চলছে কোভিড-১৯ ভাইরাসে প্রাণহানি। ১১ মার্চ করোনাকে মহামারী ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। যেখানে এখন পর্যন্ত ৮০ লাখ ৩৭ হাজার ৭৮৯ জন মানুষ করোনার শিকার হয়েছেন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ২০ হাজার ১১  জনের।

সংক্রমণের নিরিখে দুইয়ে থাকা ভারতে গত একদিনেও ৫৪ হাজারের বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৭১ লাখ ৭৩ হাজারে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ১ লাখ ৯ হাজার ৮৯৪ জনের।

প্রাণহানির তালিকায় দুই নম্বরে অবস্থান করা ব্রাজিলে সংক্রমিতের সংখ্যা ৫১ লাখ ৩ হাজারের বেশি। প্রাণহানি বেড়ে ১ লাখ ৫০ হাজার ৭০৯ জনে ঠেকেছে।

এছাড়া, রাশিয়া, কলম্বিয়া, স্পেন, আর্জেন্টিনা, পেরু,  মেক্সিকো, ফ্রান্স, দক্ষিণ আফ্রিকা, যুক্তরাজ্য, ইরাক, ইরান ও চিলিতে ভয়াবহ রূপ নিয়েছে করোনা।

এদিকে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেয়া তথ্য মতে, গতকাল সোমবার পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৭৯ হাজার ৭৩৮ জন। এর মধ্যে প্রাণহানি ঘটেছে ৫ হাজার ৫৫৫ জনের।


আরও পড়ুন

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.