টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ইউপি সদস্যসহ মাদক মামলার দুই আসামি নিহত


 

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ইউপি সদস্যসহ মাদক মামলার দুই আসামি নিহত হয়েছে। শুক্রবার (২৪ জুলাই) ভোর রাতে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের ওয়াব্রাং এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানা যায়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ।

নিহতরা হলেন, উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের নয় নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য বখতিয়ার আহমদ ওরফে মৌলভী বখতিয়ার (৫৫) ও কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ই-ব্লকের বাসিন্দা ইউসুফ আলীর ছেলে মোহাম্মদ তাহের (২৭)।
ওসি প্রদীপ বলেন, ‘বৃহস্পতিবার ভোরে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের ওয়াব্রাং এলাকা থেকে ইয়াবাসহ মোহাম্মদ ইউনুছ নামে একজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশের একটি দল। পরে জিজ্ঞাসাবাদে সে পুলিশের কাছে সহযোগীদের অবস্থান ও মাদক লেনদেনের নানা তথ্য দেয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে ইউনুছকে নিয়ে টেকনাফ থানা পুলিশের একটি দল কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় অভিযান চালায়। এ সময় ১০ লাখ টাকাসহ বখতিয়ার আহমদ ও তাহেরকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ওসি আরও বলেন, ‘গ্রেপ্তারকৃতদের থানায় আনার পর জিজ্ঞাসাবাদে তথ্য দেয়, হ্নীলার ইউনিয়নের ওয়াব্রাং এলাকার ইয়াবার চালানসহ অস্ত্র মজুদ রয়েছে। পরে তাদের নিয়ে শুক্রবার ভোর রাতে পুলিশের একটি দল অভিযান চালায়। এসময় ঘটনাস্থলে পৌঁছামাত্র তাদের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি করে। সহযোগীদের ছোড়া গুলিতে বখতিয়ার আহমদ ও মোহাম্মদ তাহের গুলিবিদ্ধ হয়। এ ঘটনায় আহত হয় পুলিশের ৩ সদস্য। ঘটনাস্থলে তল্লাশী করে পাওয়া যায় ২০ হাজার ইয়াবা, ৫ টি দেশীয় বন্দুক ও ১৭টি গুলি।

ওসি প্রদীপ আরও বলেন, ‘গুলিবিদ্ধদের উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়। এসময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠান। সেখানে নিলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক দুইজনকেই মৃত ঘোষণা করেন। নিহত দুইজনই মাদক আইনে দায়ের মামলার আসামি ছিলেন। তিনি জানান, নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।


আরও পড়ুন

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.